ল্যাপটপ কেনার গাইড - ল্যাপটপ কেনার আগে ও পরে করণীয়


ল্যাপটপ কেনার গাইড

বর্তমানে ল্যাপটপ জিনিসটা সবার ইউজ করার একটা কমন ডিভাইস এ পরিণত হয়েছে। আগে এটাকে বিলাসিতার জিনিস বলে গণ্য করা হত কিন্তু এখন এটা নিত্যপ্রয়োজনীয় একটা ডিভাইস হিসেবে দাঁড়িয়েছে। আগে পিসি কেনার কথা উঠলেই মানুষ ডেস্কটপ কম্পিউটার এর কথা ভাবত কিন্তু এখন পিসি কেনার কথা বললেই ল্যাপটপ এর কথা আগে মাথায় আসে। তো এ পর্বটি সাজানো হয়েছে ল্যাপটপ কেনার গাইডলাইন নিয়ে।
ল্যাপটপ কেনার গাইড


ল্যাপটপ কিনতে পরামর্শ

ল্যাপটপ কিনতে যে পরামর্শ দিব তা হল আপনি নিজে আগে চিন্তাভাবনা করে সিদ্ধান্ত নেন আপনি কি কাজের জন্য কি ধরণের ল্যাপটপ নিতে চাচ্ছেন। আপনি যদি বাসায় ইউজ করতে চান তাহলে একটু বড় সাইজের হলেও সমস্যা নেই। এক্ষেত্রে আপনি ১৫" অথবা ১৫.৬" সাইজের ল্যাপটপ নিতে পারেন। আর যদি বাইরে নিয়ে যেতে হয় ভার্সিটি বা অফিসে তাহলে একটু ছোট সাইজ নেয়াটাই বেটার হবে। এক্ষেত্রে ১৩" বা ১৪" সাইজের নিতে পারেন। আর অবশ্যই ব্যাটারির কথা চিন্তা করতে হবে ব্যাটারি কেমন ব্যাকআপ দিবে তা জেনে নিতে হবে।


নতুন ল্যাপটপ কেনার আগে করণীয়

আপনার ল্যাপটপ কেনার আগে করণীয় কাজগুলো নিচে উল্ল্যেখ করে দিলাম। আশা করি আপনার কাজে লাগবে।

বাজেটঃ কেনার আগে যে জিনিসটি প্রথমে আসে তা হল আপনার বাজেট। প্রথমেই বাজেট ঠিক করে নিবেন যে কত টাকার মধ্যে নিতে চান। তাহলে সে অনুযায়ী কনফিগারেশন সিলেক্ট করা যাবে।

প্রসেসরঃ প্রসেসর হচ্ছে পিসির সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ন পার্ট। প্রসেসরের উপর ডিপেন্ড করে আপনার ল্যাপটপ এর পারফরম্যান্স। প্রসেসর এর ক্লক স্পীড, ক্যাশ মেমরি, কোরের সংখ্যা, বাসস্পীড এগুলো জেনে নিতে হবে।

হার্ডডিস্কঃ আপনার পিসির মেমরীটাকেই হার্ডডিস্ক বলা হয়। আপনার যাবতীয় ফাইল, অডিও, ভিডিও, মুভি, টিউটোরিয়াল সবকিছুই কিন্তু হার্ডডিস্ক এ থাকবে। হার্ডডিস্ক এ স্পেস যত বেশি থাকবে আপনি তত বেশি ফাইল রাখতে পারবেন। বর্তমানে ৫০০ গিগাবাইট এবং ১ টেরাবাইট এর হার্ডডিস্ক পাওয়া যায়। আমার মত আপনিও নিশ্চই ১ টেরাবাইট কেনার কথা ভাবছেন?

র‍্যামঃ র‍্যাম এর উপর আপনার পিসির কার্যক্ষমতা নির্ভর করে। বর্তমানে ২ জিবি থেকে শুরু করে ৮ জিবি পর্যন্ত র‍্যাম পাওয়া যায়। মিনিমাম ৪ জিবি র‍্যাম নেয়ার ট্রাই করবেন। এর বেশি হলে তো আরও ভাল।

ব্যাটারীঃ আগের ল্যাপটপ গুলোতে Ni-Cad নিকেল-ক্যাডমিয়াম ইউজ করা হত। কিন্তু বর্তমানে Li-ion লিথিয়াম-আয়ন ব্যাটারী ইউজ করা হয়। ব্যাটারীর কার্যক্ষমতা নির্ভর করে এর সেলে সংখ্যার উপর। সেল বেশি হলে চার্জ বেশীক্ষন থাকবে। ট্রাই করবেন ৬ সেল এর ব্যাটারী নেয়ার জন্য।

এইচপি ল্যাপটপের দাম

নতুন ল্যাপটপ কেনার পর

নতুন ল্যাপটপ কেনার পর অনেকেই চিন্তায় পড়ে যান, কিভাবে কি করবেন বুঝতে পারেন না তাদের জন্য আজকের এই পোস্ট।
ল্যাপটপ কেনার সময় দোকান থেকেই আপনাকে বেসিক সেটাপটা করে দেয়া হবে। সেগুলো হয়তো আপনার মনের মত নাও হতে পারে। তাই আপনি বাসায় বসে নিজের মত করে যেন সব সাজিয়ে নিতে পারেন সেটাই আজকে জানাব।

উইন্ডোজ আপডেট করা
আপনার কম্পিউটারটি চালু করার করার পর যে কাজটি প্রথমে করবেন সেটি হল উইন্ডোজ আপডেট করে নেয়া। এজন্য আপনার পিসিতে ইন্টারনেট সংযোগ থাকতে হবে। ইন্টারনেট সংযোগ চালু করার পর সেটিংস মেনুতে গিয়ে আপডেট করতে হবে। আপডেট করার পর চেক করে নিবেন সবকিছু ঠিকঠাক মত কাজ করছে কিনা।

ড্রাইভার আপডেট করা
পিসি কেনার সময় আপনাকে সিডির মত দেখতে একটা ডিস্ক দেয়া হবে। এটার মধ্যেই ড্রাইভারগুলো থাকে। এখান থেকে আপনার প্রয়োজনীয় ড্রাইভারগুলো ইন্সটল/আপডেট করে নিবেন। আর যদি এই ডিস্কটি না থাকে তাহলে নেটে সার্চ করে যে কোম্পানীর ল্যাপটপ কিনেছেন সেই কোম্পানীর মডেল অনুসারে ড্রাইভারগুলো ডাউনলোড করে নিবেন।

এন্টিভাইরাস ইন্সটল করা
উইন্ডোজ আপডেট করার পর, ড্রাইভার ইন্সটল করার পর যে কাজটি করবেন সেটি হচ্ছে একটি ভাল এন্টি ভাইরাস ইন্সটল করে নেয়া। আমার সাজেশন থাকবে সব ফিচার আছে এ রকম একটি এন্টিভাইরাস ইউজ করা, যদি কিনতে না পারেন তাহলে নেট থেকে ফ্রী একটি এন্টিভাইরাস নামিয়ে নিতে পারেন। এতে আপনার পিসিতে ফাইল ট্রান্সফার এর সময় অথবা ইন্টারনেট চালানোর সময় ভাইরাস এর হাত থেকে নিরাপদ থাকতে পারবেন।

এই পোস্টটি দেখতে পারেন কম্পিউটার নিরাপদ রাখার উপায়সমূহ

সফটওয়্যার ইন্সটল করা
পিসি কেনার সময় দোকান থেকেই আপনাকে কিছু সফটওয়্যার দিয়ে দেয়া হবে। কিন্তু এর বাইরেও আপনার সফটওয়্যার প্রয়োজন হতে পারে। তখন আপনি নেটে সার্চ করে আপনার প্রয়োজনীয় সফটওয়্যারগুলো নামিয়ে ইন্সটল করে নিবেন।
এখানে একটি সাইট এর লিংক দিয়ে দিলাম। এটি খুব জনপ্রিয় একটি কম্পিউটার এপ কালেকশন সাইট। আপনি এখান থেকে আপনার প্রয়োজনীয় সব সফটওয়্যার নামিয়ে নিতে পারবেন।

অপ্রোজনীয় সফটওয়্যার আনইন্সটল করা
কম্পিউটার কেনার সময় দোকান থেকে অনেক সময় কিছু এপ ইন্সটল করে দেয় যেগুলো আপনার কোন কাজে লাগবে না। আপনি সেগুলো খুঁজে আনইন্সটল করে দিবেন।

এই আর্টিকেলগুলো মিস করবেন কেন-



পোস্টটি কেমন লাগল কমেন্ট করে আপনার অনুভূতি জানান। ভাল লাগলে আপনার ফ্রেন্ডদের জানাতে ফেসবুকে শেয়ার করুন।

Post a Comment

0 Comments